রাবিতে শ্রুতি লেখক শিক্ষার্থীরা পাবে ঘন্টা প্রতি অতিরিক্ত ১০ মিনিট

রাবিতে শ্রুতি লেখক শিক্ষার্থীরা পাবে ঘন্টা প্রতি অতিরিক্ত ১০ মিনিট

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শ্রুতি লেখক শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতি ঘন্টায় ১০ মিনিট অতিরিক্ত সময় বৃদ্ধি করে সিন্ডিকেটে আইন পাশ করা হয়েছে। গত (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে ৫১৯তম সিন্ডিকেট সভায় প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার সময় বৃদ্ধির এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

শুক্রবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা এম তারেক নূর।

তিনি বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিকৃত প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মধ্যে যে সকল প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর শ্রুতি লেখক প্রয়োজন তাদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সিন্ডিকেটে আলোচনা সাপেক্ষে পরীক্ষায় প্রতি ঘন্টায় অতিরিক্ত ১০ (দশ) মিনিট সময় বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে পিছনে ফেলে সমাজ কখনো উন্নয়নের দিকে ধাবিত হতে পারবে না। তাদের সুবিধার জন্যই আমরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ পদক্ষেপ শ্রুতি লেখক শিক্ষার্থীর জন্য অনেকটাই সুবিধা বয়ে আনবে বলে আমি আশাবাদী।

উল্লেখ্য, যে সকল শিক্ষার্থীর শ্রুতি লেখক প্রয়োজন না হলেও হাতে লিখতে সমস্যা রয়েছে। যারা পা দিয়ে লিখে ও যে হাত দিয়ে লিখে সেটি দূর্বল ও নাজুক তারাও একই হারে সময় পাবে। এক্ষেত্রে শর্ত থাকে যে, উল্লিখিত শিক্ষার্থীদেরকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের চীপ মেডিকেল অফিসারের সুপারিশ ও প্রত্যয়নপত্র দাখিল করতে হবে।

এ প্রস্তাবটি সিন্ডিকেটে পাশ হওয়ার পর একে সাধুবাদ জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকা প্রতিবন্ধী সংগঠন ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (পিডিএফ)।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পিডিএফের সভাপতি আশিকুর রহমান সোহাগ বলেন, এমন যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত সিন্ডিকেটে পাশ করার জন্য প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এ সিদ্ধান্ত শুধু রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে নয় বাংলাদেশের সকল প্রতিষ্ঠানে চালু করা হোক। যারা শ্রুতি লেখক রয়েছে তারা নিয়ম বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে কোনোভাবেই পরীক্ষা শেষ করতে পারে না ফলে তাদের জন্য এটা অনেক বড় সুখবর। এমন শিক্ষার্থীবান্ধব সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য প্রশাসনকে আবারও ধন্যবাদ জানান এ সভাপতি।

Leave a Reply