বিক্রির চাপে দর বাড়েনি কোনো খাতে

বিক্রির চাপে দর বাড়েনি কোনো খাতে

দেশের পুঁজিবাজারে সব সূচক কমার মধ্য দিয়ে গতকাল রোববার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসের লেনদেন শেষ হয়েছে। তবে আগের দিনের তুলনায় কিছুটা বাড়লেও লেনদেন তলানিতে ছিল। এদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটদর কমেছে। গতকাল বিনিয়োগকারীদের শেয়ার বিক্রির চাপে সূচকের পতন হয়। এর সঙ্গে কোনো খাতেই শেয়ারদর বৃদ্ধি পায়নি। এদিন শেয়ার বিক্রির চাপ সবচেয়ে বেশি ছিল আইটি খাতের শেয়ারে। ফলে খাতটিতে শেয়ারদর সবচেয়ে বেশি কমেছে। কিন্তু খাতটি লেনদেনের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে ছিল।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ কম থাকায় আইটি খাতে শেয়ারদর সবচেয়ে বেশি কমেছে। খাতটিতে শেয়ারদর কমেছে ৩ দশমিক ২০ শতাংশ। এরপরের স্থানে থাকা ভ্রমণ ও অবকাশ খাতে শেয়ারদর কমেছে ২ দশমিক ৮০ শতাংশ। তৃতীয় স্থানে থাকা সেবা ও আবাসন খাতে ২ দশমিক ৪০ শতাংশ শেয়ারদর কমেছে। ১ দশমিক ৭০ শতাংশ দর কমে চতুর্থ স্থানে ছিল কাগজ ও মুদ্রণ খাতের শেয়ার। এছাড়া টেলিকমিউনিকেশন, সিমেন্ট, মিউচুয়াল ফান্ড, ব্যাংক, প্রকোশলী ও আর্থিক খাতে শেয়ারদর বৃদ্ধির বা কমার কোনো পরিবর্তন হয়নি।

অপরদিকে গতকাল লেনদেনের দিক থেকে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ওষুধ ও রসায়ন খাতে। খাতটিতে গতকাল ডিএসইর মোট লেনদেনের ১৫ দশমিক ৭০ শতাংশ লেনদেন হয়েছে। এরপর দ্বিতীয় স্থানে থাকা আইটি খাতে ডিএসইর মোট লেনদেনের ১৫ দশমিক ২০ শতাংশ লেনদেন হয়েছে। তৃতীয় স্থানে থাকা ভ্রমণ খাতে ডিএসইর মোট লেনদেনের ১০ শতাংশ লেনদেন হয়েছে। ৮ দশমিক ৯০ শতাংশ লেনদেন হওয়া সিরামিক খাত রয়েছে চতুর্থ স্থানে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ডিএসইতে ২৩১ কোটি ৪১ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ২২২ কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার। এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৩ দশমিক শূন্য ২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ১৮২ দশমিক শূন্য ৯ পয়েন্টে। এছাড়া ডিএসই-৩০ সূচক ৬ দশমিক ৫৯ পয়েন্ট এবং ডিএসইএস সূচক ৫ দশমিক শূন্য ৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ২ হাজার ২১৪ দশমিক ৭৪ পয়েন্টে এবং ১ হাজার ৩৫০ দশমিক ৭৮ পয়েন্টে। এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৮৪টি কোম্পানির মধ্যে শেয়ার ও ইউনিটের দর বেড়েছে ৪টি এবং কমেছে ১৪৯টির। শেয়ার পরিবর্তন হয়নি ১৩১টির।

অপরদিকে সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪ কোটি ৬৩ লাখ টাকা শেয়ার। আগের কার্যদিবসে ৭ কোটি ১০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। এদিন সিএসইতে লেনদেন হওয়া ১০০টি কোম্পানির মধ্যে শেয়ার ও ইউনিটদর বেড়েছে ২টি, কমেছে ৫৩টি এবং পরিবর্তন হয়নি ৪৬টির। এদিন সিএসইর প্রধান সূচক সিএএসপিআই ৫৮ দশমিক ৪৬ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ২৭৬ দশমিক ৩৭ পয়েন্টে। এছাড়া সিএসই-৫০ সূচক দশমিক ৮৩ পয়েন্ট, সিএসই-৩০ সূচক ৩২ দশমিক শূন্য ১ পয়েন্ট, সিএসসিএক্স সূচক ৩৫ দশমিক ২৬ পয়েন্ট ও সিএসআই সূচক ৩ দশমিক ৫৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১ হাজার ৩২৪ দশমিক ৫১ পয়েন্টে, ১৩ হাজার ২৬৬ দশমিক ২২ পয়েন্টে, ১০ হাজার ৯৫৪ দশমিক ৯১ পয়েন্টে ও ১ হাজার ১৫৩ দশমিক ৮৬ পয়েন্টে।

Leave a Reply