স্পট মার্কেটে ওইমেক্স ইলেকট্রোড

স্পট মার্কেটে ওইমেক্স ইলেকট্রোড

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কোম্পানি ওইমেক্স ইলেকট্রোড লিমিটেডের শেয়ার বৃহস্পতিবার থেকে স্পট মার্কেটে লেনদেন হচ্ছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, কোম্পানিটির লভ্যাংশ-সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারিত হয়েছে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি। তাই গত বৃহস্পতিবার থেকে স্পট মার্কেটে লেনদেন হচ্ছে কোম্পানিটির শেয়ার ও আগামী রোববারও কোম্পানির শেয়ার স্পট মার্কেটে লেনদেন হবে। রেকর্ড ডেটের দিন শেয়ার লেনদেন বন্ধ থাকবে। রেকর্ড ডেট শেষ হওয়ার পরদিন থেকে শেয়ার লেনদেন স্বাভাবিক নিয়মেই চলবে।

জানা গেছে, গত ৩০ জুন, ২০২২ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ এক শতাংশ নগদ লভ্যাংশ (উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ব্যতীত) দেয়ার ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৬৫ পয়সা (লোকসান) এবং ৩০ জুন, ২০২২ শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১১ টাকা ৭২ পয়সা। আর এই হিসাববছরে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে ৫৭ পয়সা (ঘাটতি)। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ৩০ মার্চ বেলা ২টায় অনলাইনে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ ফেব্রুয়ারি।

এর আগে সর্বশেষ ২০২০ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের পাঁচ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫১ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৩ টাকা ৯৬ পয়সা। এর আগে ২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের সাড়ে ১২ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। আলোচিত সময়ে ইপিএস হয়েছে এক টাকা ৬৬ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ১৫ টাকা ১৩ পয়সা। আর মোট মুনাফা করেছে ৯ কোটি ৪০ লাখ ৮০ হাজার টাকা। কোম্পানিটি ২০১৭ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। কোম্পানির ১৭০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৬৭ কোটি আট লাখ ৫০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২২ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট ছয় কোটি ৭০ লাখ ৮৪ হাজার ৭৮১ শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৩০ দশমিক ০১ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ৩০ দশমিক ৫১ শতাংশ এবং বাকি ৩৯ দশমিক ৪৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে।

Leave a Reply