আইএমএফের ঋণ দেশের অর্থনৈতিক সুব্যবস্থাপনার স্বীকৃতি: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

আইএমএফের ঋণ দেশের অর্থনৈতিক সুব্যবস্থাপনার স্বীকৃতি: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

বাংলাদেশ সুপরিকল্পিত উন্নয়নের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম বলেন, ‘বৈশ্বিক প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আমাদের অর্থনৈতিক সুব্যবস্থাপনা রয়েছে, আর তারই অন্যতম স্বীকৃতি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএসএফ) ঋণ।আমরা যা চেয়েছি তার থেকে বেশি ঋণ পেয়েছি।’

গতকাল সোমবার জাতীয় পরিসংখ্যান দিবসের আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পরিসংখ্যান ভবনে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস)। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান। সভাপতিত্ব করেন বিবিএসের সচিব ড. শাহনাজ আরেফিন।

শামসুল আলম বলেন, ‘এই দুর্যোগময় সময়েও আমরা পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক সফলতার পরিচয় দিয়েছি। সে কারণে আইএমএফের কাছ থেকে বাংলাদেশ ঋণ চাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তারা তা গ্রহণ করে নেয় এবং খুব দ্রুত তা প্রদান করেছে। যে পরিমাণ ঋণ চাওয়া হয়েছে, তার থেকে বেশি প্রদান করছে সংস্থাটি।’ তিনি আরও বলেন, গত এক দশক ছিল সোনালি সময়। আমরা রপ্তানি বহুমুখীকরণে নজর দিয়েছি, যে কারণে কয়েকটি পণ্যে প্রথমবারের মতো এক বিলিয়ন ডলার আয় করেছি। রপ্তানি বৈচিত্র্যায়নে আমরা বহুদূর এগিয়ে গিয়েছি। বাংলাদেশ অনেক পরিকল্পিতভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।’

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে পরিসংখ্যানের গুরুত্ব বাড়ছে। দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন এবং পরিকল্পনা প্রণয়নের ক্ষেত্রে তথ্য অপরিহার্য। বর্তমান সরকার কর্তৃক ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণসহ অন্যান্য পরিকল্পনা বাস্তবায়নে প্রতিটি সেক্টরে নির্ভুল, সময়োপযোগী এবং মানসম্মত তথ্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান বলেন, ‘পরিসংখ্যান তৈরি একটি টেকনিক্যাল বিষয়। দক্ষ জনবল ছাড়া মানসম্মত তথ্য তৈরি এবং সরবরাহ করা সম্ভব নয়। এজন্য বিবিএসের জনবলের দক্ষতা বাড়াতে হবে। পাশাপাশি জনবল নিয়োগের ক্ষেত্রেও যোগ্যদের প্রাধন্য দিতে হবে। এছাড়া সব মন্ত্রণালয়ে পরিসংখ্যানের ব্যবহার এবং অথনৈতিক বিশ্লেষণের প্রয়োজনীয়তা বাড়ছে। এজন্য সব বিভাগে যোগ্য টেকনিশিয়ান থাকা উচিত। তিনি আরও বলেন, জরিপ কাজে নগরায়ণের তথ্য থাকা উচিত। নগরায়ণের গ্রোথ রেটটা দেখা দরকার। নগরায়ণের ট্রেন্ড যদি না জানা যায়, তাহলে নগরায়ণ হবে অপরিকল্পিত। সে কারণে নগরায়ণকে জরিপে গুরুত্ব দিতে হবে।

Leave a Reply