কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা-চ্যাটজিপিটির বিকল্প তৈরিতে মাঠে নামছে ইলন মাস্ক

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা-চ্যাটজিপিটির বিকল্প তৈরিতে মাঠে নামছে ইলন মাস্ক

এবার চ্যাটজিপিটির বিকল্প তৈরির লড়াইয়ে শামিল হলেন বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক। স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান ওপেন এআইয়ের তৈরি চ্যাটজিপিটির বিকল্প তৈরিতে নতুন গবেষণা ল্যাব স্থাপন করতে চান তিনি। সে লক্ষ্যে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাবিষয়ক গবেষকদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন তিনি। খবর রয়টার্সের।

টেসলা ও টুইটারের প্রধান ইলন মাস্ক নতুন গবেষণা ল্যাব তৈরিতে ইগর বাবুসকিনকে নিয়োগ দিয়েছেন। ইগর বাবুসকিন একজন গবেষক। তিনি অ্যালফাবেটের মালিকানাধীন ডিপ মাইন্ডে কাজ করতেন। সম্প্রতি সেই চাকরি ছেড়েছেন তিনি।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাচালিত বট চ্যাপজিপিটি অল্প কয়েক দিনেই সারা বিশ্বে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। চ্যাটজিপিটি হলো একধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার। এটি একধরনের ভাষাভিত্তিক মডেল, যাকে অসংখ্য ডেটা দিয়ে প্রশিক্ষিত করা হয়েছে। ফলে কোনো ডিভাইসের মাধ্যমে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই এর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা যায়। এটি দিয়ে গবেষণাপত্রের পাশাপাশি গল্প, কবিতা, উপন্যাস—এসব লেখা যায়।

ইলন মাস্ক ২০১৫ সালে সিলিকন ভ্যালির বিনিয়োগকারী স্যাম অল্টম্যানের সঙ্গে ওপেন এআই প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। কিন্তু টেসলায় যোগ দেওয়ার পর ২০১৮ সালে তিনি ওপেন এআই ছেড়ে দেন।

এক সাক্ষাৎকারের উদ্ধৃতি নিয়ে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, চ্যাটজিপিটির বিকল্প তৈরিতে একটি গবেষণা দল তৈরির পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করছেন ইলন মাস্ক ও বাবুসকিন। তবে ইগর বাবুসকিন বলছেন, তিনি এখনো এই উদ্যোগে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাক্ষর করেননি।

চ্যাটজিপিটি বাজারে আসার পর সার্চ ইঞ্জিন গুগলও চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। তারা সার্চ ইঞ্জিনের সঙ্গে বার্ড নামের এক চ্যাটবট সংযুক্ত করার লক্ষ্যে জোর চেষ্টা করছে। তাদের দেখে অন্যরাও এআইয়ের লড়াইয়ে নামছে।

Leave a Reply