ব্যবসা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে

ব্যবসা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে

আগামী ছয় মাসে দেশের ব্যবসা পরিস্থিতির উন্নতির আশা করছেন উদ্যোক্তারা। তাঁদের ধারণা, এ সময়ে রপ্তানি আদেশ বাড়তে পারে। সেবা খাতেও নতুন করে চাহিদা তৈরি হবে। পণ্যের বিক্রি মূল্য বাড়বে। এসব মিলিয়ে বাড়বে ব্যবসা কার্যক্রম। এ সুবিধা কাজে লাগাতে আগামী ছয় মাসে ব্যবসা সম্প্রসারণে বিনিয়োগের কথাও ভাবছেন তাঁরা। তবে ব্যবসার ব্যয় নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে তাঁদের মধ্যে।

বিজনেস ইনিশিয়েটিভ লিডিং ডেভেলপমেন্টের (বিল্ড) ব্যবসায় আস্থা জরিপ প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। গতকাল রোববার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়।

এ জরিপ পরিচালনার উদ্দেশ্য হচ্ছে, বিগত ছয় মাসে দেশের ব্যবসা পরিস্থিতি বিশ্লেষণ। সেই সঙ্গে পরবর্তী ছয় মাস (আগামী জুন পর্যন্ত) অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে ধারণা দেওয়া। যাতে নীতিনির্ধারণে সরকার এবং বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রে উদ্যোক্তারা সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। গত সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত সময়ে অনলাইনে প্রশ্নোত্তরের ভিত্তিতে জরিপটি পরিচালনা করা হয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সেবা ও শিল্প খাতের ৫৬৭ জন উদ্যোক্তার মতামত নেওয়া হয়েছে এতে। জরিপে সার্বিক আস্থা সূচকে স্কোর দাঁড়িয়েছে ৭৪ দশমিক ৪ শতাংশ, যা আগামী ছয় মাসের জন্য ব্যবসায়িক পরিস্থিতিতে সম্ভাবনার ইঙ্গিত দেয়। অন্যদিকে, ব্যবসা পরিচালনায় ব্যয়ের ক্ষেত্রে স্কোর হচ্ছে ২২ দশমিক ৪ শতাংশ। আগের ছয় মাসে এ সূচকের স্কোর ছিল ৩৫ দশমিক ৮ শতাংশ। ব্যয় বিষয়ে ব্যবসায়ীরা বিশেষ করে উৎপাদন খাতের ব্যবসায়ীরা ‘নিম্ন আস্থা’ প্রদর্শন করেছেন। এ থেকে বোঝা যায়, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, বাড়ি ভাড়াসহ ব্যবসায়ের ব্যয়ের বোঝা কমাতে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।

প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন বিল্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌস আরা বেগম। তিনি বলেন, এবারের জরিপে সাতটি কম্পোনেন্টের মধ্যে ছয়টিরই ভালো অবস্থা দেখা গেছে। এগুলো হচ্ছে– কর্মসংস্থান, রপ্তানি আদেশ, সেবার চাহিদা, ব্যবসার কার্যক্রম, বিক্রয়মূল্য ও বিনিয়োগ। একমাত্র ব্যবসার ব্যয় সম্পর্কিত মতামতের ক্ষেত্রে নেতিবাচক বার্তা পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, জরিপে দেখা যায়, আগামী ছয় মাসের জন্য সেবা খাতের তুলনায় উৎপাদন খাতের বিভিন্ন সূচক বেশি ইতিবাচক। তুলনায় পিছিয়ে আছে সেবা খাত। অন্যদিকে, প্রতিষ্ঠিত উদ্যোক্তাদের তুলনায় নতুন উদ্যোক্তাদের ব্যবসায় আস্থা কিছুটা কম দেখা গেছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন । তিনি বলেন, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে বাংলাদেশও নানান চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। তার পরও এই জরিপে ব্যবসায়ীদের আস্থা বাড়ার বিষয়টি ভালো সংবাদ। সংকট মোকাবিলা ও উত্তরণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যথেষ্ট সক্ষমতা প্রমাণ করেছে।

বিল্ডের সাবেক চেয়ার আবুল কাসেম খান বলেন, ব্যবসা পরিচালন ব্যয় কমাতে সেবা আরও সহজ করা দরকার। এজন্য নীতি সংস্কার প্রয়োজন।

ঢাকা চেম্বারের সভাপতি সামির সাত্তার বলেন, ব্যবসা পরিচালনা ব্যয় কমানোর সুপারিশগুলো সরকারকে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করতে হবে।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স করপোরেশনের (আইএফসি) কান্ট্রি ম্যানেজার মার্টিন হল্টম্যান, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) ভাইস চেয়ারম্যান এএইচএম আহসান, বিডার নির্বাহী সদস্য মহসিনা ইয়াসমীন, সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট সোসাইটির প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নকিব উদ্দীন খান, ইউনিডো বাংলাদেশের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ জাকি উজ জামান প্রমুখ।

Leave a Reply